ইন্দোনেশিয়ায় বালিতে ভূমিকম্প

ইন্দোনেশিয়ায় মঙ্গলবার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৭.১। প্রথম দফার ভূমিকম্পের পর দেশটির বালি ও অন্যান্য দ্বীপপুঞ্জ কয়েকবার কেঁপে উঠে। এতে স্থানীয় বাসিন্দা ও পর্যটকরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ে এবং দ্রুত রাস্তায় বেরিয়ে আসে। তবে এ ভূমিকম্পের ঘটনায় তেমন কোন ক্ষতি হয়নি। খবর এএফপি’র।
মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, স্থানীয় সময় রাত ৩টা ৫৫ মিনিটের দিকে বালির উত্তর-পূর্ব উপকূল থেকে প্রায় ৫১৫ কিলোমিটার দূরে সমুদ্র তলদেশে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে।
এতে বালি দ্বীপজুড়ে এবং লম্বক ও সুম্বাওয়া দ্বীপেও ভূকম্পন অনুভূত হয়।
বালির বাসিন্দারা জানান, দ্বিতীয় আফটারশক প্রথমটির চেয়ে ‘দীর্ঘ এবং শক্তিশালী’ ছিল।
৩১ বছর বয়সী আর্ডিলা ইউলিয়াসিত্রা বলেন, ‘প্রথম দফার ভূমিকম্পের সময় আমি আমার স্বামীকে ঘুম থেকে ডেকে তুলি। এর কিছুক্ষণ পর দ্বিতীয় দফার ভূমিকম্প আঘাত হানলে আমরা আর দেরি না করে আমাদের বাচ্চাদের বাইরে নিয়ে যাই।’
তিনি বলেন, ‘প্রথম দফার ভূমিকম্পে আমি নৌকার মতো দুলতে থাকি এবং দ্বিতীয় দফার ভূমিকম্পে আমার ঘর কাঁপতে থাকে।
মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, প্রথম দফার ভূমিকম্পের কয়েক মিনিটের মধ্যেই রিখটার স্কেলে ৫.৪ মাত্রার একটি এবং ৫.৬ মাত্রার আরেকটি আফটারশক হয়।
এদিকে সম্ভাব্য সুনামির আশংকায় বিভিন্ন হোটেল তাদের অতিথিদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়।
ইন্দোনেশিয়া কর্তৃপক্ষ সুনামির সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে। এ ভূমিকম্পে তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির কোন খবর পাওয়া যায়নি।
২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপ উপকূলে একটি শক্তিশালী ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্ট সুনামির আঘাতে ২৩০,০০০ মানুষ প্রাণ হারায়।

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on linkedin
LinkedIn
Share on email
Email

সম্পকিত খবর