জেলা প্রশাসনের স্মার্ট স্কুল বাস পরিচালনায় বিআরটিসি ও জিপিএইচ ইস্পাত এর মধ্যে সমঝোতা

আজ ৬ জুন দুপুরে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে চট্টগ্রাম-এ প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ১০ টি স্মার্ট স্কুল বাস পরিচালনায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি) ও জিপিএইচ ইস্পাত লিঃ এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক চুক্তিপত্র স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয় ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) সাদি উর রহিম জাদিদ , জিপিএইচ ইস্পাত লিঃ এর সিকিউরিটি ও লজিস্টিক উপদেষ্টা কর্নেল (অবঃ) মোঃ শওকত ওসমান ও মিডিয়া উপদেষ্টা মোহাম্মদ ওসমান গনি , চট্টগ্রাম বিআরটিসি বাস ডিপো ম্যানেজার মোঃ জুলফিকার আলী , এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার গণ, স্মার্ট স্কুল বাস মনিটরিং টিমের নুরুল আজিক রনি সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ , টেকনলজি পার্টনার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ।

সমঝোতা স্মারকে বিআরটিসি বাস ডিপোর ম্যানেজার জুলফিকার আলী এবং জিপিএইচ ইস্পাত এর উপদেষ্টা শওকত ওসমান নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্বাক্ষর করেন ।

বিআরটিসি স্মার্ট স্কুল বাস প্রদান করায় চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাশার মো ফখরুজ্জামান বিআরটিসি চেয়ারম্যান ও অতিরিক্ত সচিব মোঃ তাজুল ইসলাম ও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ এর সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী এর প্রতি ধন্যবাদ কৃতজ্ঞতা জানান।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাশার মো ফখরুজ্জামান বলেন, এসব বাসে নগরীর পাঁচটি সড়কে ছাত্র ছাত্রীরা যাতায়াত করতে পারবেন । বাসগুলোতে স্মার্ট টেকনোলজি, জিপিএস ট্যাকার, ক্যামেরা, এআই ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের স্কুল যাতায়াতের ক্ষেত্রে বাসে ওঠা নামার সময় অভিভাবকের ফোনে স্বয়ংক্রিয় এসএমএস প্রদান, বাসে শিক্ষার্থীদের অবস্হান মনিটরিং এবং স্বল্প খরচে স্কুল কলেজে যাওয়া আসা নিশ্চিত করা হয়েছে । আগামীতে চাহিদা অনুযায়ী ক্রমান্বয়ে বাসের সংখ্যাও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে ‘সমৃদ্ধ নগর, উন্নত গ্রাম, প্রযুক্তির ছোঁয়ায় স্মার্ট চট্টগ্রাম’- স্লোগান সামনে নিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এরই ধারাবাহিকতায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতাধীন এসপায়ার টু ইনোভেট (এটুআই) প্রোগ্রাম কর্তৃক পরিচালিত দেশের জেলাগুলোর উদ্ভাবনী কার্যক্রমভিত্তিক প্রতিযোগিতা ‘স্মার্ট ডিস্ট্রিক্ট ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ-২০২৩’ এর আওতায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ‘স্মার্ট স্কুলবাস’ নামক উদ্ভাবনী উদ্যোগটি প্রথম পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ১০টি দ্বিতল স্কুল বাস ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে নগরীতে চলাচল করছে। আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত এ সকল স্মার্ট স্কুল বাসে যে কোন স্কুলের শিক্ষার্থীরা নাম মাত্র ৫ টাকা ভাড়ায় যে কোন দূরত্বে চলাচল করতে পারেন। জিপিএস ট্র্যাকার, জিআইএস প্রযুক্তি, আইপি ক্যামেরা ছাড়াও এ বাসে ডিজিটাল হাজিরা ডিভাইস আছে। যেখানে শিক্ষার্থীরা কার্ড চাপ দিলেই অভিভাবকদের মোবাইলে চলে যাচ্ছে খুদে বার্তা। ফলে অভিভাবকরা সন্তানদের নিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত থাকতে পারছেন

আগামী দুই বছরও ‘স্মার্ট স্কুল বাস’এর স্পন্সর হিসাবে থাকছে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড (GPH ispat Limited). এই দুই বছরে তারা এক কোটি চুয়াল্লিশ লাখ টাকা অনুদান দিবেন। যা থেকে বাসের ড্রাইভার স্টাফদের বেতন ছাড়াও জ্বালানী খরচ সহ বাসগুলোর সকল ধরনের মেইনটেনেন্স খরচ বহন করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ১০টি দ্বিতল স্কুল বাস ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে নগরীতে চলাচল করছে। এ স্কুলবাস গুলোকে বর্তমানে ‘স্মার্ট স্কুল বাস’ এ রুপান্তর করা হয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত এ সকল স্মার্ট স্কুল বাসে যে কোন স্কুলের শিক্ষার্থীরা নাম মাত্র ৫ টাকা ভাড়ায় যে কোন দূরত্বে চলাচল করতে পারেন। জিপিএস ট্র্যাকার, জিআইএস প্রযুক্তি, আইপি ক্যামেরা ছাড়াও এ বাসে ডিজিটাল হাজিরা ডিভাইস আছে। যেখানে শিক্ষার্থীরা কার্ড চাপ দিলেই অভিভাবকদের মোবাইলে চলে যাচ্ছে খুদে বার্তা। ফলে অভিভাবকরা সন্তানদের নিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত থাকতে পারছেন।

 

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on linkedin
LinkedIn
Share on email
Email

সম্পকিত খবর