বৃষ্টিতে ডুবেছে শষ্যভাণ্ডার খ্যাত গুমাইবিল

তিনদিনের বৃষ্টিতে ডুবে গেছে শষ্যভাণ্ডার খ্যাত রাঙ্গুনিয়ার গুমাইবিল। এতে কয়েকশ একর আমন বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে আশংকা করছেন কৃষকরা।

এর আগে পানির সংকটে যথাসময়ে আমন চারা রোপণ করা সম্ভব হয়নি। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে জমিতে সেচের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করে চাষাবাদ শুরু করার পর টানা বৃষ্টিতে গুমাইবিল প্লাবিত হয়।

ইতিমধ্যে গুমাইবিলে আমন চাষাবাদে লক্ষ্যমাত্রার ৩৫০০ হেক্টরের মধ্যে ৫০ শতাংশ রোপণ হয়ে গেছে বলে উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়।

চন্দ্রঘোনা পাঠান পাড়া গ্রামের কৃষক নুরুল হক জানান, এবার ১০০ কানি (১৮ হেক্টর) জমিতে আমনের আবাদ করছি।

সময়মতো বৃষ্টি না হওয়ায় সেচ পাম্প দিয়ে চারা রোপণ করেছিলাম। এতে খরচ কিছুটা বাড়লেও এখন বৃষ্টি ক্ষতি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।
কুদ্দুচ নামের আরেক কৃষক বলেন, অন্যান্য বছর সময়মতো বৃষ্টি হলে আষাঢ় মাসের মধ্যেই আমনের চারা রোপণ কাজ শেষ করতে পারতাম। তবে এবার বৃষ্টি দেরিতে হওয়ায় শ্রাবণ মাসের ২য় সপ্তাহে এসে চারা রোপণ করতে হয়েছে। এখন আবার টানা বৃষ্টি হওয়ায় আমন চারা পচে যেতে পারে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে পুরো গুমাই বিল ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

গুমাইবিলের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা উত্তম কুমার জানান, গত ২-৩ দিনের প্রবল বৃষ্টিতে গুমাই বিলে আমন চাষাবাদে ক্ষতি হয়েছে। রোপণকৃত চারা এখন পানির নিচে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস বলেন, চলতি আমন মৌসুমে রাঙ্গুনিয়ার গুমাই বিলসহ উপজেলার বিভিন্ন বিলে আমন চারা লাগানো হচ্ছে। তবে বৃষ্টিপাতের কারণে রোপণকৃত চারা তলিয়ে গেছে। বৃষ্টি বন্ধ হলে এসব চারা বাঁচানো যাবে।

 

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on linkedin
LinkedIn
Share on email
Email

সম্পকিত খবর