ভোটে সংঘাতের শঙ্কা! হাটহাজারীর চিকনদন্ডী ইউনিয়নে উপ-নির্বাচন কাল

 

হাটহাজারীর ১২ নং চিকন্দন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের উপ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে প্রচারণা শেষ করছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা।

তীব্র দাপদাহে টানা প্রচার প্রচারণায় সরগরম হয়ে ছিল গ্রাম, পাড়া ও মহল্লা। নিজেদের যোগ্য প্রার্থী দাবি করে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটে গিয়েছেন তারা। তবে জেনে শুনে যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিবেন এমন মন্তব্য রয়েছে সাধারণ ভোটারদের। এই ইউনিয়নের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ। ১০ প্রার্থী নির্বাচনে দাড়ালেও লড়াই হবে তিন প্রার্থীর।

আগামীকাল ২৮ এপ্রিল রবিবার এ ইউনিয়ন পরিষদের উপ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে অবাঁধ ও সুষ্ঠু করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণ ও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং কর্মকর্তাদের। আজ কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছে গেছে নির্বাচনী উপকরণ।

গত ২৭ জানুয়ারি উপজেলার ১২ নং চিকনদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাসান জামান বাচ্চু’র মৃত্যুতে চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হওয়ায় আগামীকাল (২৮ এপ্রিল) রবিবার ভোট গ্রহন। তাই নির্বাচনে অংশ নেওয়া ১০ জন প্রার্থীর প্রচার প্রচারণায় সরগরম ছিল নির্বাচনী এলাকা। মাঠ থেকে পুকুর ঘাট অথবা রাস্তা থেকে প্রতিটি বাড়িতে ছুটে গিয়েছেন বা যাচ্ছেন প্রার্থীরা। নিজেদের যোগ্য দাবি করে ভোট প্রার্থনা করছেন ভোটারদের কাছে। ভোটে সংঘাতের শঙ্কা রয়েছে কয়েকটি ভোট কেন্দ্রে। তবে প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

নির্বাচনে ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও জেনে বুঝে যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার কথা জানিয়েছেন সাধারণ ভোটাররা।

এ ইউনিয়ন পরিষদের উপ নির্বাচনে মোট ভোটার ৩৯ হাজার ৮৯৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২০ হাজার ৪৫৯ জন এবং নারী ভোটার ১৯ হাজার ৪৩৭ জন। ১৩টি ভোট কেন্দ্রে ৯১টি কক্ষে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচন অবাঁধ ও সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসন তৎপর রয়েছেন। ৩জন ম্যাজিস্ট্রেট, এক প্লাটুন বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা সার্বিক নিরাপত্তায় রয়েছে।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. এবি,এম মসিউজ্জামান জানান,চিকনদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের উপ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। নির্বাচন অবাঁধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্ততি নেওয়া হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে সেজন্য ৩জন ম্যাজিস্ট্রেট, এক প্লাটুন বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা সার্বিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছে।

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on linkedin
LinkedIn
Share on email
Email

সম্পকিত খবর