সেপ্টেম্বেরের মধ্যে বিমানবন্দর এলাকার সড়ক সংস্কার চান মেয়র

সেপ্টেম্বরের মধ্যে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সড়ক সংলগ্ন সব সড়ক নির্মাণ, সংস্কার ও সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।
সোমবার বর্ষার ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের চলমান সড়ক সংস্কার কার্যক্রম পরিদর্শন করেন মেয়র। নগরীর রুবি সিমেন্ট সংলগ্ন খালের পাশে সম্ভাব্য সড়ক নির্মাণস্থল পরিদর্শন করার পর বিমানবন্দর মোড়ে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালসমৃদ্ধ চত্বর নির্মাণের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন এবং ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার জন্য প্রকৌশল বিভাগকে নির্দেশ দেন।
এসময় মেয়র বলেন, উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা টানেল, বিমানবন্দর আর বন্দর ও ইপিজেডের বাণিজ্যিক সম্ভাবনার সর্বোচ্চ সুফল ঘরে তুলতে এ এলাকাগুলোর সড়কের মান রক্ষায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি। পাশাপাশি বিমানবন্দর দিয়ে গমনাগমন করা মানুষের দৃষ্টিনন্দন ভ্রমণ নিশ্চিতে জোর দিচ্ছি আমাদের সংস্কৃতির সাথে সামঞ্জস্যশীল সৌন্দর্যবর্ধনে।
নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এ মোড়ের নির্মানাধীন চত্বরে থাকছে বাংলার ঐতিহ্যবাহী সাম্পানের ম্যুরাল। মেয়র রেজাউল দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই শহরের সৌন্দর্যবর্ধনের মাধ্যমে নান্দনিক চট্টগ্রাম গড়ার যে পরিকল্পনা নিয়েছেন তারই অংশ বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালসমৃদ্ধ এ চত্বর। প্রায় ৮২ লাখ টাকা ব্যয়েবিমানবন্দরের প্রবেশমুখে কর্ণফুলীর তীরে নির্মাণাধীন চত্বরে একটি জলাধার থাকবে। এর ওপর বসানো হবে সাম্পান। আর থাকবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল। । নদী থেকেও বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালটি দেখা যাবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চসিকের কাউন্সিলর ছালেহ আহম্মদ চৌধূরী, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মনিরুল হুদা, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বিপ্লব দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী আশিকুল ইসলাম, প্রকল্প পরামর্শক প্রকৌশলী জীবন কৃষ্ণ দাশসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
উল্লেখ্য, গত মার্চ মাসে নগরীর বিমান বন্দর সড়ক ও ভিআইপি সড়ক দুটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে নামকরণে সিটি মেয়র রেজাউলের করা প্রস্তাবে সায় দেয় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। নগরীর সল্টগোলা ক্রসিং থেকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত বিমানবন্দর সড়ক এবং বিমানবন্দরের প্রবেশ মুখ হতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের মুখ পর্যন্ত ভিআইপি সড়ক দুটোর নাম হবে ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা সড়ক’। এবার এই দুই সড়কের সংযোগস্থল বিমান বন্দর সড়কের মোড়ে বসছে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল।

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on linkedin
LinkedIn
Share on email
Email

সম্পকিত খবর